আমরা এখন কোচের দায়িত্বে, বাচ্চাদের খেলতে দিন: মিশা

0
23

বিনোদন: ঈদে মুক্তি পেয়েছে শাকিব খান অভিনীত ‘লিডার, আমিই বাংলাদেশ’। সিনেমাটি মুক্তির পর থেকেই ব্যাপক আলোড়ন তৈরি করেছে। রীতিমতো সবগুলো প্রেক্ষাগৃহই ভরপুর রয়েছে সিনেমাপ্রেমীদের ভিড়ে। বেশ প্রশংসায় ভাসছে এটি। এতে আরও অভিনয় করেছেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের আরেক জনপ্রিয় অভিনেতা মিশা সওদাগর। বর্তমানে সিনেমা দেখার পাশাপাশি এর প্রচারণায়ও ব্যস্ত সময় পার করছেন তিনি। সম্প্রতি সিনেমার নানা বিষয় নিয়ে কথা বলেন গণমাধ্যমে। মিশা বলেন, লিডাররাই তো লিড দেয়। শাকিব এবং আমি যে সিনেমায় থাকব, সে সিনেমা এমনেতেই অন্যান্যগুলো থেকে আলাদা হয়ে যাবে। কারণ, একজন শাকিবকে তৈরি করতে ইন্ডাস্ট্রির ১৫ বছর লেগেছে। একজন মিশা তৈরি করতে ২৫-৩০ বছর লেগেছে। হুট করে তো আমরা আসিনি। মানুষ দেখবে, মানুষের গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে কাজ করা শিল্পীরা তো একদিনে তৈরি হয় না। অভিজ্ঞতাই সবচেয়ে বড় বলে মনে করি আমি। এই সিনেমাটা পরিবারের সবাইকে নিয়ে দেখার মতো একটি সিনেমা। মহিলারাও সিনেমাটি দেখছেন। আমার আর শাকিবের অভিজ্ঞতার জন্যই আমরা সবসময় এগিয়ে থাকব। এই সিনেমাটা যেহেতু তুলনামূলকভাবে ডিমান্ডডেবল এবং হল থেকেও এটাই বলছে। শুধু অভিনয় করলেই তো দায়িত্ব শেষ হয়ে যায় না। সিনেমার প্রচারণা বিরাট একটি অংশ এখন। আমাদের প্রমোশনে বের হতে হবে। আরটিভি এবং আমার ডিরেক্টরের সঙ্গে যেখানে যেখানে প্রয়োজন সেখানেই গিয়ে সিনেমার প্রমোশন করব ইনশাআল্লাহ্। খলনায়ক বলেন, পৃথিবীতে সবচাইতে কঠিন হচ্ছে, একটি কমার্শিয়াল সিনেমা বানানো। আর্ট সিনেমা সহজেই বানানো যায় কিন্তু ভালো আর্টিস্ট, বড় স্ক্রিপ্ট, ভালো ক্যামেরা, ভালো লেন্স নিয়ে সেট তৈরি করে দর্শকদের দেখিয়ে সেটা প্রুভ করা অনেক কঠিন। কারণ, জনপ্রিয় শিল্পীকেই মানুষ বারবার দেখতে চায়। এবার ঈদেও কিন্তু আরেকবার সেটা প্রমাণ হলো। আপনারাই কিন্তু বলছেন যে, এই সিনেমাটা অনেক ভালো চলছে। রুচির পরিবর্তন হবে কি না জানতে চাইলে মিশা বলেন, রুচির পরিবর্তন তো হবে। একদিনে তো সেটা সম্ভব না। আপনারা যেহেতু রুচির কথা জানতে চাচ্ছেন, তার মানে সিনেমাটি কিছুটা হলেও আপনাদের মনে ইফেক্ট ফেলেছে বলেই কিন্তু রুচির কথা উঠেছে। এটাই একজন নির্মাতার সার্থকতা। তিনি আরও বলেন, এবার চারজন নির্মাতার সিনেমা এসেছে। তরুণরা আসছে তাদের তো সুযোগ দিতে হবে। সিনিয়রদেরকে তরুণদের জায়গা করে দিতে হবে কাজ করার জন্য। কারণ, এখনই ওদের সময় যুদ্ধে যাওয়ার। আপনারা বাচ্চাদের খেলতে দিন, আমরা তো এখন কোচ। এই যে আমার ওস্তাদরা আমাকে তৈরি করেছে, এখানে আমার কোনো অবদান নেই। তারা আমাকে রাস্তা দেখিয়েছে তৈরি করেছে, আমি শুধু সেই রাস্তায় হেঁটে গেছি মাত্র।