• মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ০৬:২৬

মোরেলগঞ্জে টিসিবির পণ্য বিক্রিতে অনিয়ম মাঠে নেই ট্যাগ কর্মকর্তা

প্রতিনিধি: / ৯৯ দেখেছেন:
পাবলিশ: বুধবার, ২৭ মার্চ, ২০২৪

মোরেলগঞ্জ(বাগেরহাট)সংবাদদাতা: বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে ডিলারের বিরুদ্ধে ট্রেডিং করপোরেশন বাংলাদেশ (টিসিবি) এর পণ্য বিক্রি কার্যক্রমে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার ১১ নং বহরবুনিয়া ইউনিয়নে পবিত্র মাহে রমজান মাসে চাল সহ অনন্য পন্য দেয়ার নির্দেশনা থাকলেও ওই ইউনিয়নের ডিলার মেসার্স ইত্তেজাহাসান এন্টারপ্রাইজের সত্ত্বাধীকারী ইত্তেজা হাসান রানা গত ২১মার্চ (বৃহস্পতিবার)  ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে সরকার নির্ধারিত মুল্যে টিসিবি পন্যের চাল ছাড়া অনন্য তেল,চিনি,ছোলা বিতরন কার্ডধারী সুবিধাভোগীদের। এ নিয়ে ক্ষুদ্র স্থানীয় সুবিধাভোগীরা।
টিসিবি পন্য বিতরনের সময়ে সরকারের স্হানীয় যে প্রতিনিধি অর্থাৎ ট্যাগ অফিসার থাকে তার নাম জানেন না ও তাকে  চেনেনই না এই টিসিবি ডিলার।
বহরবুনিয়া ইউনিয়নের টিসিবি সুবিধার আওতায় রয়েছেন ৮৭৫ জন উপকারভোগী। এরা প্রত্যেক ৫২৫ টাকার বিনিময়ে এ  মাসে ৫ কেজি চাল, ২ লিটার সয়াবিন তেল,১ কেজি ছোলা ও ২ কেজি মসুর ডাল ক্রয় করতে পারবেন,কিন্তু গত ২১ মার্চ  তারিখে ওই ইউনিয়নে চাল ছাড়া অন্য খাদ্যদ্রব্য বিতরণ করেছেন এই ডিলার।এ নিয়ে চরম ক্ষুব্ধ ওই ইউনিয়নের  নিম্ন আয়ের মানুষ।
নদী তীরবর্তী এই ইউনিয়নের সুবিধাভোগীরা  চাল ছাড়া ছোলা,তেল,ডাল পেয়েছেন,কিন্তু তাদের বেচে থাকাটা মুল চাহিদার ভোগ্যপন্য চাল নিতে পারেন নি কেউই এমনই অভিযোগ কার্ডধারী উপকারভোগীদের । ডিলার দাবি করছে ওই ইউনিয়নের ওএমএস  ডিলার তাকে চাল দেন নি,তাই তিনি কার্ডধারীদের চাল দিতে পারেন নি।
অন্যদিকে উপজেলা খাদ্য অফিস জানালেন, ওই ইউনিয়নের ওএমএস এর চাল ডিলারকে গত ১৩ মার্চ খাদ্যগুদাম থেকে দিয়ে দেয়া হয়েছে। এছাড়াও বিগত দিনে ইত্তেজাহাসান এন্টারপ্রাইজের বিরুদ্ধে মাপে কম দেয়া সহ অনেক কার্ডধারীদের মাল কম দেয়ারও অভিযোগ রয়েছে।
এ বিষয়ে মেসার্স ইত্তেজাহাসান এন্টারপ্রাইজ এর সত্ত্বাধীকারী রানা বলেন,আমাকে ওএমএস ডিলার চাল দিতে পারে নি বিধায় আমি কার্ডধারীদের চাল বিতরণ করতে পারি নি,এ বিষয়ে তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানিয়েছেন কিনা প্রশ্ন করলে বিষয়টি তিনি এড়িয়ে যান।
বহরবুনিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান টি এম রিপন হোসেন বলেন,আমাকে ডিলার জানায় নি, রমজান মাসে কেন চাল ছাড়া অন্য পন্য দিলো সে বিষয়ে আমি জানি না,ডিলার  নিজের খেয়ালখুশি মতো করে টিসিবির পণ্য বিতরন করেন। ট্যাগ অফিসার এখানে আসে না বলেও জানান তিনি।
উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এস এম তারেক সুলতান জানান,বিষয়টি আমি শুনেছি, তবে ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে আমরা বিষয়টি তদন্ত করে ওই ডিলারের বিরুদ্ধে  প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।


এই বিভাগের আরো খবর
https://www.kaabait.com