• সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ১০:১৭
সর্বশেষ :
বাগেরহাটে ২য় ধাপে ৩ উপজেলায় ৩২ প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল বাগেরহাটে অগ্রনী ব্যাংকের পিএলসি নতুন ভবনের শুভ উদ্বোধন ভ্যান চালক ও পথচারীদের মাঝে টুপি, খাবার স্যালাইন ও পানি বিতরণ করেন মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীর  পাইকগাছায় তিব্র গরমে তৃষ্ণা মেটাতে ফুটপথের  শরবতে ভরসা ; বাড়ছে স্বাস্থ্যঝুঁকি প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক পুরস্কার গ্রহন করলেন ফকিরহাট উপজেলার কৃতি সন্তান সাবেক ফুটবল খেলোয়ার মোঃ মিরাজ সরদার  ফকিরহাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচন : ৯জন প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল আর্সেনাল লিগের শীর্ষে ফিরল নিউ জিল্যান্ড সিরিজ শেষ আজম খানের মহসিন শেখ বাংলাদেশ দলের অ্যানালিস্ট বিশ্বকাপে ভারতের ‘ডার্ক হর্স’ দুবে : গিলক্রিস্ট

ফিলিস্তিনের গাজায় কবরস্থানে বোমা হামলা, লাশ ছিটকে বাইরে

প্রতিনিধি: / ৮৫ দেখেছেন:
পাবলিশ: সোমবার, ৪ মার্চ, ২০২৪

বিদেশ : ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা ভুখন্ডের একটি ‘অস্থায়ী কবরস্থানে’ বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল। ভুখন্ডটির উত্তরাঞ্চলে অবস্থিত জাবালিয়া শরণার্থী শিবিরের বাসিন্দারা এই কবরস্থানটি তৈরি করেছিলেন। হামলায় নিহত অনেকের মরদেহ কবর থেকে ছিটকে বেরিয়ে আসে। খবর বার্তাসংস্থা আনাদোলুর। উত্তর গাজা উপত্যকার সিভিল ডিফেন্সের পরিচালক আহমেদ আল-কাহলোত বলেছেন, ‘ইসরায়েলি সেনাবাহিনী একটি গণকবরে বোমাবর্ষণ করেছে যেখানে কয়েকশ শহীদের লাশ দাফন করা হয়েছিল। ইসরায়েলি হামলায় নিহত এসব মানুষকে  সমাহিত করা হয়েছিল। বোমা হামলার ফলে কবরস্থান ধ্বংস হয়ে যায় এবং এতে করে মাটির নিচ থেকে অনেক মৃতদেহ প্রকাশ্যে চলে আসে। বেসামরিক প্রতিরক্ষা দলগুলো বাইরে চলে আসা মৃতদেহগুলোকে পুনরায় সমাধিস্থ করার জন্য কাজ করছে।’ আনাদোলু বলছে, গত বছরের ৭ অক্টোবর গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলের আগ্রাসন শুরু হওয়ার পর থেকে অবরুদ্ধ এই  সকল গভর্নরেটের বাসিন্দারা আবাসিক এলাকা, বাড়ির আঙিনা এবং খেলার মাঠসহ বিভিন্ন স্থানে অস্থায়ী যৌথ এবং পৃথক কবর স্থাপনের পথ অবলম্বন করেছে। বেসামরিক লোকদের ওপর ঘন ঘন হামলা করা ছাড়াও রাস্তা বন্ধ রাখা এবং ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর অবকাঠামো ধ্বংসের কারণে নিয়মিত কবরস্থানে প্রবেশ করা অসম্ভব বলে অস্থায়ী এসব কবরস্থানে লাশ দাফন করে আসছে ফিলিস্তিনিরা। এছাড়া যুদ্ধের শুরু থেকেই সামরিক যানবাহন প্রবেশ করতে পারে এমন এলাকায় কবর খনন এবং সেগুলোতে হামলা করেই চলেছে ইসরায়েলি সেনাবাহিনী। ইচ্ছাকৃতভাবে কবরস্থানের মতো স্থানগুলোকে ধ্বংস করা এবং এগুলোকে সামরিক লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করা আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন। ইসরায়েলের এই ধরনের কর্মকান্ড যুদ্ধাপরাধ হিসাবে বিবেচিত হতে পারে। গত বছরের ৭ অক্টোবর হামাসের নজিরবিহীন আন্তঃসীমান্ত হামলার পর থেকে ইসরায়েল গাজা উপত্যকায় অবিরাম বিমান ও স্থল হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। ইসরায়েলি এই হামলায় হাসপাতাল, স্কুল, শরণার্থী শিবির, মসজিদ, গির্জাসহ হাজার হাজার ভবন ক্ষতিগ্রস্ত বা ধ্বংস হয়ে গেছে। ফিলিস্তিনের গাজা ভুখন্ডের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গাজায় ইসরায়েলের আক্রমণের ফলে এখন পর্যন্ত ৩০ হাজার ৪১০ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। যাদের বেশিরভাগই নারী ও শিশু। এছাড়া আহত হয়েছেন আরও ৭১ হাজার ৭০০ জন।

 

 


এই বিভাগের আরো খবর
https://www.kaabait.com