• শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ০৯:৩৩

তাসকিনের ২ উইকেট, উইকেটশূন্য মুস্তাফিজ

প্রতিনিধি: / ১৯ দেখেছেন:
পাবলিশ: সোমবার, ৮ জুলাই, ২০২৪

স্পোর্টস: এলোমেলো বোলিংয়ে প্রথম ওভারে ২১ রান দিলেন তাসকিন আহমেদ। এরপর নিজেকে কিছুটা গুছিয়ে নিলেন তিনি। কোটার শেষ ওভারে পেলেন দুই উইকেট। লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগে (এলপিএলে) তার প্রতিপক্ষ দলে মুস্তাফিজুর রহমান পার করলেন ভীষণ বাজে একটি দিন। পঞ্চাশের বেশি রান দিয়ে থাকলেন উইকেটশূন্য। বল হাতে নিজে খারাপ করলেও দিনশেষে জয়ের স্বাদ পেয়েছেন মুস্তাফিজ। ডাম্বুলায় রোববার তাসকিনদের কলম্বো স্ট্রাইকার্সের বিপক্ষে ৮ উইকেটে জেতে মুস্তাফিজদের ডাম্বুলা সিক্সার্স। ১৮৬ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ১৩ বল আগে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় ডাম্বুলা। টস জিতে আগে বোলিং নেওয়া ডাম্বুলার হয়ে ৪ ওভারে ৫৩ রান দেন মুস্তাফিজ। ৫ ছক্কার সঙ্গে দুটি চার হজম করেন তিনি, ডট দিতে পারেন ৯টি। দলটির হয়ে সবচেয়ে বেশি রান খরচ করেন বাঁহাতি এই পেসার। বাজে শুরুর পর ঘুরে দাঁড়িয়ে ৪ ওভারে ৪৫ রান দিয়ে ২ উইকেট নেন তাসকিন। এক ছক্কার সঙ্গে ৫টি চার আসে তার বল থেকে। ১১টি দেন ডট। কলম্বোর আর কোনো বোলার নিতে পারেননি উইকেট। এবারের এলপিএলে এখন পর্যন্ত পাঁচ উইকেট নেওয়া মুস্তাফিজ ম্যাচের চতুর্থ ওভারে বল হাতে নিয়ে প্রথম দুটি দেন ডট। পরের ডেলিভারিটি ছিল শর্ট, পুল করেন অ্যাঞ্জেলো পেরেরা, তার ব্যাটের কানায় লেগে থার্ডম্যান দিয়ে হয় ছক্কা। শেষ তিন বলে এক রান দেন তিনি। পাওয়ার প্লের শেষ ওভারের শুরুটা দারুণ করেন মুস্তাফিজ। কিন্তু পরে হারিয়ে ফেলেন ছন্দ। প্রথম দুটি ডট দেওয়ার পর শেষ চার বলে হজম করেন দুটি বাউন্ডারি। সঙ্গে একটি সিঙ্গেলে ওভারটি থেকে আসে ৯ রান। সপ্তদশ ওভারে বোলিংয়ে এসে ১৭ রান খরচ করেন মুস্তাফিজ। প্রথম তিন বলে চার রান দিয়ে পরের ডেলিভারিটি করেন ওয়াইড, সঙ্গে বাই থেকে আসে চার রান। পরের দুই বলে দুই রান দিয়ে ভালো শেষের আশায় ছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ বলে তাকে ছক্কায় ওড়ান চামিকা কারুনারাতেœ। ১৯তম ওভারে গেøন ফিলিপস ও কারুনারাতেœ মিলে মুস্তাফিজের ওপর ঝড় বইয়ে দেন। প্রথম বলে এক্সট্রা কাভার দিয়ে বল মাঠের বাইরে উড়িয়ে ফেলেন ফিলিপস। দুই বল পর আরেকটি ছক্কা মারেন তিনি একই জায়গা দিয়ে। পরের বলে উইকেট পেতে পারতেন মুস্তাফিজ। কিন্তু শর্ট থার্ডম্যানে ফিলিপসের ক্যাচ ছাড়েন নুয়ান প্রদিপ, আসে একটি সিঙ্গেল। স্ট্রাইক পেয়ে মুস্তাফিজের ¯েøায়ার বল কাউ কর্নার দিয়ে ছক্কায় ওড়ান কারুনারাতেœ। ওভারটিতে ২০ রান দেন মুস্তাফিজ। আগের ম্যাচে এক উইকেট নেওয়া তাসকিনের শুরুটা হয় দুঃস্বপ্নের মতো। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে বোলিং করতে এসে দেন ২১ রান। ১০ বলের ওভারে চারটি ওয়াইড দেন তিনি, যার দুটিতে লেগ সাইড দিয়ে বাই থেকে হয় বাউন্ডারি। এ ছাড়া তাকে দুটি চার মারেন কুসাল পেরেরা। নিজের দ্বিতীয় ওভারেও ভালো করতে পারেননি তাসকিন। তার করা ইনিংসের পঞ্চম ওভারে আসে ১২ রান। তবে একটি চার আসে বাই থেকে। ওভারের দ্বিতীয় বলে তাকে ছক্কায় ওড়ান রিজ হেনড্রিকস। ত্রয়োদশ ওভারে ফের বোলিংয়ে আসা তাসকিনকে প্রথম ডেলিভারিতে চার মারেন কুসাল পেরেরা। দুই বল পর আরেকটি বাউন্ডারি হজম করেন তিনি হেনড্রিকসের ব্যাটে। সঙ্গে দুই সিঙ্গেলে ওভারটিতে দেন ১০ রান। কোটার শেষ ওভারটিও প্রথম বলে চার দিয়ে শুরু করেন তাসকিন। পরের পাঁচ বলে দারুণ বোলিংয়ে ২ রান দিয়ে ধরেন দুই শিকার। ওভারে চতুর্থ ডেলিভারিতে ছক্কার চেষ্টায় মিডউইকেট বাউন্ডারিতে ধরা পড়েন হেনড্রিকস। শেষ বলে তার ¯েøায়ারে স্কয়ার লেগে ক্যাচ দেন কুসাল পেরেরা। আগের ম্যাচে ৮০ রান করা হেনড্রিকস এবার করেন ৩ ছক্কা ও ৪টি চারে ৩৯ বলে ৫৪। তার উদ্বোধনী জুটির সঙ্গী কুসাল পেরেরা ৪ ছক্কা ও ৮ চারে খেলেন ৮০ রানের চমৎকার ইনিংস। কলম্বোর হয়ে সর্বোচ্চ ৫২ রান করেন আগের ম্যাচে ৭০ রান করা গেøন ফিলিপস।


এই বিভাগের আরো খবর
https://www.kaabait.com