• শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ০৯:২৯

গুরুত্বপূর্ণ পাহাড়ি শহর রাশিয়ার দখলে

প্রতিনিধি: / ১২ দেখেছেন:
পাবলিশ: শুক্রবার, ৫ জুলাই, ২০২৪

বিদেশ : ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ পাহাড়ি শহর চাসিভ ইয়ারের একাংশ অংশ দখল করেছে রুশ বাহিনী। এই কৌশলগত বিজয় ইউক্রেনীয় বাহিনীর জন্য গুরুতর সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে। কারণ এই এলাকাটি রক্ষায় ইতোমধ্যে হিমশিম খাচ্ছিল ইউক্রেন। এবার তা আরও কঠিন হয়ে পড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এ খবর জানিয়েছে। ছোট্ট শহর চাসিভ ইয়ার পাহাড়ি এলাকায় অবস্থিত। এটিকে পূর্বাঞ্চলীয় ডনেস্ক অঞ্চলের একটি প্রবেশদ্বার হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এই শহর থেকে নিচু অঞ্চলের দিকে নজর রাখা যায়। রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, তাদের বাহিনী চাসিভ ইয়ার এর পূর্বাঞ্চলীয় জেলা দখল করেছে। ইউক্রেনীয় সামরিক বাহিনীর এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, কিয়েভের সেনারা জেলাটি থেকে পিছু হটেছে। ওই এলাকায় তাদের প্রতিরক্ষামূলক অবস্থান ধ্বংস হওয়ার পর এবং সেনাদের জীবনের কথা বিবেচনায় এলাকাটি ধরে রাখার প্রচেষ্টা অপ্রয়োজনীয় হওয়ায় পূর্বাঞ্চলীয় জেলা থেকে সেনাদের সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। ইউক্রেনের জাতীয় টেলিভিশনকে দেশটির সেনাবাহিনীর খোর্তিতসিয়া গ্রæপের মুখপাত্র নাজার ভলোশিন বলেছেন, গত কাল চাসিভ ইয়ার এলাকায় সব ধরনের অস্ত্রের ২৩৮টি আক্রমণ লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। একই সময়ে ইউক্রেনীয় পর্যবেক্ষণ দল ডিপ স্টেট জানিয়েছে, রুশ বাহিনী কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ একটি রাস্তার দিকে অগ্রসর হচ্ছে যা বাখমুতকে সংযুক্ত করে। এই রাস্তা ইউক্রেনীয় সামরিক বাহিনীর জন্য একটি প্রধান সরবরাহ লাইন। চাসিভ ইয়ার এর অংশ থেকে ইউক্রেনীয় বাহিনীর প্রত্যাহার কিয়েভের জন্য একটি উদ্বেগজনক ঘটনা। কারণ এটি কয়েক মাস ধরে নিরন্তর রুশ আক্রমণের পর সম্মুখভাগ স্থিতিশীল করতে মনোযোগ দিয়েছে। পশ্চিমা সামরিক সহায়তার বিলম্বের কারণে কিয়েভের গোলাবারুদের ঘাটতির সুবিধা নিচ্ছে রাশিয়া। পূর্বাঞ্চলীয় রণক্ষেত্রের পাশাপাশি উত্তরের খারকিভেও হামলা চালাচ্ছে রুশ সেনারা। এর ফলে পূর্বাঞ্চল থেকে কিছু সেনাকে উত্তরে মোতায়েন করতে বাধ্য হয় কিয়েভ। তবে সা¤প্রতিক সপ্তাহগুলোতে পশ্চিমা অস্ত্র অবশেষে ফ্রন্টলাইনে পৌঁছানোর পরে ইউক্রেনের জন্য পরিস্থিতি উন্নত হতে শুরু করেছে। খারকিভের দিকে একটি সম্ভাব্য বড় রুশ আক্রমণ প্রতিহত করা হয়েছিল এবং পূর্বাঞ্চলীয় রণক্ষেত্রে অপেক্ষাকৃত স্থিতিশীল হয়ে উঠেছিল। ইউক্রেন জোর দিয়ে বলছে, তারা এখনও চাসিভ ইয়ারের পশ্চিম অংশ নিয়ন্ত্রণ করছে এবং পূর্ব অংশ থেকে সেনা প্রত্যাহার একটি কৌশলগত সিদ্ধান্ত ছিল। পর্যবেক্ষণ দল ডিপ স্টেট জানিয়েছে, জেলাটি সম্পূর্ণ ধ্বংস হয়ে গেছে এবং ধ্বংসাবশেষ ধরে রাখা শুধু ক্ষতি বাড়াবে। এলাকাটি থেকে সরে আসা কঠিন সিদ্ধান্ত হলেও যৌক্তিক।


এই বিভাগের আরো খবর
https://www.kaabait.com