• শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪, ১২:৩১
সর্বশেষ :
রেমালের জলোচ্ছাসে মোরেলগঞ্জে ৩ শ’ কিলোমিটার সড়ক ক্ষতিগ্রস্ত পঞ্চগড়ে ১ লাখ ৬৪ হাজার শিশু পাবে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল সংবাদ প্রকাশের পর ক্যান্সারে আক্রান্ত মরিয়মকে চিকিৎসার অর্থ সহায়তা  সেতুমন্ত্রীর ঈদ পরবর্তী দুর্ঘটনা রোধে সড়কে তদারকি বাড়ানোর নির্দেশ এক লাখের বেশি কেন্দ্রে খাওয়ানো হবে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল রিমালে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৪ পাকিস্তানি নিহত ইরান সীমান্তে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর গুলিতে প্রাণ গেল একজনের উড়োজাহাজের সচল ইঞ্জিনের মধ্যে পড়ে ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার ইসরায়েল থেকে ইসরায়েল রাফায় বোমাবর্ষণ অব্যাহত রেখেছে

ইন্দুরকানীর ৩ যুবককে চোর সন্দেহে আটক করে মোড়েলগঞ্জে নির্যাতন করার প্রতিবাদে এলাকাবাসীর মানবন্ধন

প্রতিনিধি: / ৯২ দেখেছেন:
পাবলিশ: রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) প্রতিনিধিঃ ইন্দুরকানীর ৩ যুবককে মোরেলগঞ্জ উপজেলার সানকিভাংঙ্গায় চোর
সন্দেহে আটক করে অমানষিক নির্যাতন ও পুলিশে দেয়ার প্রতিবাদে মানবন্ধন
করেছে এলাকাবাসী । জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার বালিপাড়া
গ্রামের মৃত আব্দুস সাত্তার ফকিরের ছেলে মানষিক প্রতিবন্ধী ছেলে আনোয়ার
ফকির (৩৭) ও তার ছেলে সাইমুন ফকির (১২) এবং ভবানীপুর গ্রামের লতিফ ঘরামীর
ছেলে ছগির ঘরামী (৩৬) বাগেরহাটে ভাঙ্গারীর মালামাল মহাজন বাদশা সিকদারের
কাছে দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। তারা পায়ে হেটে হেটে বাড়িতে ফিরছিলেন। গভীর
রাতে মোরেলগঞ্জ উপজেলার সানকিভাংঙ্গা আসলে কতিপয় লোকজন তাদের
গরুচোর সন্দেহ করে অমানষিক নির্যাতন করে পুলিশে সোপর্দ করে। পরে পুলিশ
তাদেরকে ইউনিয়নে উপজেলা হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে রোববার গুরুচুরির
মামলায় আদালতে প্রেরণ করে।
অপরদিকে এলাকাবাসী তাদেরকে ছাড়িয়ে আনতে না পেরে অন্যায় ভাবে
তাদেরকে আটক করে নির্যাতন ও পুলিশে দেয়ার প্রতিবাদে ইন্দুরকানীতে মানববন্ধন
করেন। রোববার আনোয়ারের নিজ গ্রামের বাসিন্দারা ইন্দুরকানী-বালিপাড়া সড়কে
দুই শতাধিক মানুষ তাদের পক্ষে ঘন্টাব্যাপী মানবন্ধন কর্মসূচী পালন করেন।
মানববন্ধন কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন বালিপাড়া ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য বীর
মুক্তিযোদ্ধা আঃ রশিদ চৌকিদার, আঃ জলিল শেখ, সমাজসেবক আবু ছিদ্দিক
হাওলাদার, আঃ লতিফ হাওলাদার। এসময় বক্তরা বলেন, আনোয়ার, ছগির ও সাইমুন তারা
ভালো মানুষ। তারা গরীব হলেও কখনও কারও কোন মালামাল চুরি করেনি। তারা নির্দোষ,
তাদেরকে অন্যায় ভাবে আটক করে নির্যাতন করে পুলিশে দেয়া হয়েছে। যারা তাদের
সাথে এমন আচরণ করেছে তাদের শাস্তি দাবি করেন এবং আনোয়র সহ আটককৃত
তিনজনের মুক্তি দাবি করেন। বক্তারা ও এলাকাবাসী জানান, আনোয়ার ও ছগির
দুইজনেরই মানষিক সমস্যা রয়েছে। তারা বছরে দুই একবার অসুস্থ হয়ে মানষিক
ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে। তবে কখনও কারও কোন ক্ষতি করে না।


এই বিভাগের আরো খবর
https://www.kaabait.com