• সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৫:১৫
সর্বশেষ :

অ্যান্ডারসন ৭০০ ছুঁয়ে ইতিহাস গড়ল

প্রতিনিধি: / ৭৭ দেখেছেন:
পাবলিশ: শনিবার, ৯ মার্চ, ২০২৪

স্পোর্টস: অফ স্টাম্পের অনেক বাইরের বল দূর থেকে ব্যাট এগিয়ে দিলেন কুলদিপ ইয়াদাভ। বাইরের কানায় লেগে বল চলে গেল উইকেটরক্ষকের গ্লাভসে। মাইলফলক ছোঁয়ার আনন্দে এক হাত উঁচিয়ে চিরচেনা উদযাপনে মেতে উঠলেন জেমস অ্যান্ডারসন। সতীর্থরা ঘিরে ধরলেন তাকে। পরে তিনি বল উঁচিয়ে ধরলেন গ্যালারির দিকে। যেখানে বসে চোখের সামনে ছেলের অর্জনের স্বাক্ষী হলেন তার মা-বাবা। অপেক্ষাটা ছিল যেমন অ্যান্ডারসন বা ইংলিশ ক্রিকেটের, তেমনি বিশ্ব ক্রিকেটেরও। ভারতের বিপক্ষে ধারামশালা টেস্টের তৃতীয় দিন এলো সেই কাঙ্ক্ষিত মুহূর্ত। কুলদিপের উইকেট নিয়ে ৭০০ উইকেট পূর্ণ করলেন অ্যান্ডারসন। প্রায় দেড়শ বছরের টেস্ট ইতিহাসে যা নেই বিশ্বের আর কোনো পেসারের। সাতশর ছোঁয়া পাওয়া আগের দুজনই স্পিনার- মুত্তাইয়া মুরালিদারান (৮০০) ও শেন ওয়ার্ন (৭০৮)। মাইলফলক থেকে ২ উইকেট দূরে থেকে এই টেস্ট শুরু করেন অ্যান্ডারসন। ম্যাচের দ্বিতীয় দিন অসাধারণ এক ডেলিভারিতে শুবমান গিলকে ফিরিয়ে কাছে পৌঁছে যান ৪১ বছর বয়সী পেসার। পরে অপেক্ষা করতে হয় আরও ৬২ ওভার। শনিবার দিনের চতুর্থ ওভারে শর্ট ডেলিভারিতে কুলদিপকে ভড়কে দেওয়ার পরের বলেই ৭০০-তে পৌঁছান অভিজ্ঞ এই পেসার। প্রায় ২১ বছর ক্যারিয়ারে ১৮৭ ম্যাচ ও ৩৪৮ ইনিংসে ধরা দিয়েছে তার অসাধারণ এই অর্জন। বিশ্বের আর কোনো বিশেষজ্ঞ বোলার তার চেয়ে বেশি টেস্ট খেলেননি। সব মিলিয়ে ২০০ ম্যাচ খেলে সবার ওপরে সাচিন টেন্ডুলকার। ২০০৩ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে লর্ডস টেস্টে মার্ক ভারমিউলেন ফিরিয়ে শুরু হয়েছিল অ্যান্ডারসনের যাত্রা। এরপর দীর্ঘ যাত্রায় তার বিভিন্ন মাইলফলকের শিকার জ্যাক ক্যালিস (১০০তম), পিটার সিডল (২০০তম), পিটার ফুলটন (৩০০তম), মার্টিন গাপটিল (৪০০তম), ক্রেইগ ব্রাথওয়েট (৫০০তম) ও আজহার আলি (৬০০তম)। দীর্ঘ যাত্রায় ইনিংসে ৩২ বার ৫ উইকেট পেয়েছেন অ্যান্ডারসন। ম্যাচে ১০ উইকেট নিয়েছেন ৩ বার। ২০১৮ সালে ওভাল টেস্টে ভারতের মোহাম্মদ শামিকে ফিরিয়ে গেøন ম্যাকগ্রার ৫৬৩ উইকেট টপকে টেস্ট ইতিহাসের সফলতম পেসার হয়ে গিয়েছিলেন তিনি। এরপর থেকে কেবল নিজকে ছাড়িয়ে যাওয়ার আর রেকর্ড আরও সমৃদ্ধ করার পালা। সাইথ্যাম্পটনে ২০২০ সালে আজহার আলিকে আউট করে প্রবেশ করেন ৬০০ উইকেটের ক্লাবে। ৭০০ উইকেটের মধ্যে ৪৩৪টি তিনি নিয়েছেন ইংল্যান্ডের মাঠে ১০৫ টেস্ট খেলে। দেশের মাঠে তার চেয়ে বেশি উইকেট নিয়েছেন কেবল মুত্তাইয়া মুরালিদারান (৭৩ টেস্টে ৪৯৩টি)। ভারতের বিপক্ষে সবচেয়ে বেশি ১৪৯ উইকেট অ্যান্ডারসনের। এছাড়া একশর বেশি উইকেট পেয়েছেন অস্ট্রেলিয়া (১১৭) ও দক্ষিণ আফ্রিকার (১০৩) বিপক্ষে। সবচেয়ে বেশি ১২ বার আউট করেছেন চেতেশ্বর পুজারাকে। ভারতীয় কিংবদন্তি টেন্ডুলকারকে তিনি ফিরিয়েছেন ৯ বার। বিশ্বের আর কোনো বোলার টেন্ডুলকারকে এতবার আউট করতে পারেনি।


এই বিভাগের আরো খবর
https://www.kaabait.com